ইতিহাস ঘুরাতে পারবে কি সাকিব?

স্পোর্টস ডেস্কঃ

দেশের বাইরে বাংলাদেশের প্রথম সিরিজ জয় করার মিশন শুরু হয়েছে এই ক্যারিবিয়ান দ্বীপ থেকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেকের নয় বছর পর বিদেশের মাটিতে টেস্ট এবং ওয়ানডে সিরিজ প্রথম জয় করে বাংলাদেশ। মাশরাফির ইঞ্জুরির কারণে দলের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়কের দায়িত্ব কাধে আসে সাকিব আল হাসানের। সাকিবের নেতৃত্বে বাংলাদেশ প্রথম দেশের বাইরে টেস্ট আর ওয়ানডে সিরিজ জয় করেছিল সেবার।

২০০৯ সালে ভাঙ্গাচোরা নাম সর্বস্বহারা ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তাদেরই মাটিতে যাত্রা শুরু হয়েছিল ‘ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক’ সাকিব আল হাসানের। ঠিক ৯ বছর পর সেই দেশেই পুরোদস্তুর টেস্ট অধিনায়ক হয়ে গেলেন এবার সাকিব। সময়ের ব্যবধান খুব বেশি নয় মাত্র ৯ বছর। এর মধ্যে আমাদের দেশের পদ্মা-মেঘনা-যমুনা আর ব্রহ্মপুত্র যেমন অনেক বদলে গেছে তেমনি বদলে গেছে আমাদের দেশের ক্রিকেট। সময়ের প্রবাহমানতায় বদলেছে সাকিব আল হাসানের ক্যারিয়ারও।

ইতিহাস জানাচ্ছে, সেই সফরটিই ছিল দেশের বাইরে প্রথম বাংলাদেশের সাফল্যের সফর। সেই টেস্ট সিরিজ ইতিহাসের পাতায় স্বর্ণাক্ষরে লিখা আছে। যা দেশের বাইরে বাংলাদেশের টেস্ট সিরিজ বিজয়ের স্মারক হয়েই রয়েছে। একই সাথে দেশের বাইরে প্রথম ওয়ানডে সিরিজ বিজয়ের মিশনও ছিল সেটা।

মাঝের সময়টায় বাংলাদেশ ওয়ানডে দল হিসেবে অনেক উন্নতি করেছে। র‌্যাঙ্কিংয়ে ওপরে উঠেছে। টেস্টেও উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি না হলেও টাইগাররা আগের চেয়ে দীর্ঘ পরিসরের ম্যাচেও ভালো খেলতে শিখেছে।

দেশের মাটিতে পাকিস্তানের সাথে টেস্ট ড্র, ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার মতো দলকে হারনোর কৃতিত্ব অর্জিত হয়েছে। শ্রীলঙ্কার মাটিতে লঙ্কানদের হারানোর মতো সাফল্যও দেখিয়েছে টিম বাংলাদেশ। তামিম, মুশফিক, সাকিবরা লম্বা সময় উইকেটে টিকে থাকার পাশাপাশি বড় ইনিংসও খেলতে শিখেছেন। বোলিংয়ে সাকিব, মিরাজের স্পিন ঘূর্ণিতে ইংলিশ এবং অজিরাও হয়েছে কুপোকাত।

দেশের বাইরে বাংলাদেশের প্রথম সিরিজ জয় করার মিশন শুরু হয়েছে এই ক্যারিবিয়ান দ্বীপ থেকে। অন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেকের নয় বছর পর বিদেশের মাটিতে টেস্ট এবং ওডিয়াই সিরিজ প্রথম জয় করে। মাশরাফির ইঞ্জুরির কারনে দলের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়কের দায়িত্ব কাধে আসে সাকিব আল হাসানের। সাকিবের নেতৃত্বে বাংলাদেশ প্রথম দেশের বাইরে টেস্ট আর ওয়ানডে সিরিজ জয় করেছিল সেবার।

২০০৯ সালে ভাঙ্গাচোরা নাম সর্বস্বহারা ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তাদেরই মাটিতে যাত্রা শুরু হয়েছিল ‘ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক’ সাকিব আল হাসানের। ঠিক ৯ বছর পর সেই দেশেই পুরোদস্তুর টেস্ট অধিনায়ক হয়ে গেলেন এবার সাকিব। সময়ের ব্যবধান খুব বেশি নয় মাত্র ৯ বছর। এর মধ্যে আমাদের দেশের পদ্মা-মেঘনা-যমুনা আর ব্রহ্মপুত্র যেমন অনেক বদলে গেছে তেমনি বদলে গেছে আমাদের দেশের ক্রিকেট। সময়ের প্রবাহমানতায় বদলেছে সাকিব আল হাসানের ক্যারিয়ারও।

ইতিহাস জানাচ্ছে, সেই সফরটিই ছিল দেশের বাইরে প্রথম বাংলাদেশের সাফল্যের সফর।

সেই টেস্ট সিরিজ ইতিহাসের পাতায় স্বর্ণাক্ষরে লিখা আছে। যা দেশের বাইরে বাংলাদেশের টেস্ট সিরিজ বিজয়ের স্মারক হয়েই রয়েছে। একই সাথে দেশের বাইরে প্রথম ওয়ানডে সিরিজ বিজয়ের মিশনও ছিল সেটা।

মাঝের সময়টায় বাংলাদেশ ওয়ানডে দল হিসেবে অনেক উন্নতি করেছে। র‌্যাঙ্কিংয়ে ওপরে উঠেছে। টেস্টেও উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি না হলেও টাইগাররা আগের চেয়ে দীর্ঘ পরিসরের ম্যাচেও ভালো খেলতে শিখেছে।

দেশের মাটিতে পাকিস্তানের সাথে টেস্ট ড্র, ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার মতো দলকে হারনোর কৃতিত্ব অর্জিত হয়েছে। শ্রীলঙ্কার মাটিতে লঙ্কানদের হারানোর মতো সাফল্যও দেখিয়েছে টিম বাংলাদেশ। তামিম, মুশফিক, সাকিবরা লম্বা সময় উইকেটে টিকে থাকার পাশাপাশি বড় ইনিংসও খেলতে শিখেছেন। বোলিংয়ে সাকিব, মিরাজের স্পিন ঘূর্ণিতে ইংলিশ এবং অজিরাও হয়েছে কুপোকাত।

কমেন্টস

কমেন্টস