উন্নত জীবনের স্বপ্নে নিখোঁজ তারা!

স্পোর্টস ডেস্কঃ

উন্নত দেশগুলোতে কমনওয়েলথ গেমস খেলতে যাওয়ার পর অ্যাথলেটদের  নিখোঁজ হওয়ার ঘটনা আজ নতুন নয়। অস্ট্রেলিয়ায় চলমান কমনওয়েলথ গেমস থেকে অন্তত ১৩ জন আফ্রিকান অ্যাথলেট এরই মধ্যে হাওয়া হয়ে গেছে। এসব অ্যাথলেটদের বেশির ভাগই এসেছিলো ক্যামেরুন থেকে। তাদের টিম ম্যানেজমেন্ট এক কথায় একে ‘পলায়ন’ হিসেবে বর্ণনা করেছে। নিখোঁজ অন্য অ্যাথলেটরা এসেছিলেন উগান্ডা, সিয়েরা লিওন ও রুয়ান্ডা থেকে।

ধারণা করা হচ্ছে, উন্নত দেশগুলোতে কমনওয়েলথ গেমসে এসে এভাবে পালিয়ে যাওয়ার একটাই কারণ- আর তা হলো উন্নত জীবনের স্বপ্ন। তবে উন্নত দেশে এসে এভাবে হারিয়ে যাওয়ার আরও বড় ঘটনা হয়েছে ফ্রান্সে, ২০১১ সালে। ওই সময় সেনেগালের পুরো একটি ফুটবল দল হোটেল থেকে হাওয়া হয়ে যায়।

২০০৬ সালে মেলবোর্নে কমনওয়েলথ গেমস চলাকালে অন্তত ২৫ জন অ্যাথলেট ও ১৫ জন কর্মকর্তা হারিয়ে গিয়েছিলো। পরে তাদের কয়েকজন রাজনৈতিক আশ্রয়ের আবেদন করে। ২০০২ সালে ম্যানচেস্টার গেমস থেকে হারিয়েছিলো ২৬ জন। একই ধরণের ঘটনা ঘটে অলিম্পিকের সময়েও। সিডনিতে ২০০০ সালের অলিম্পিকে এসে ভিসার মেয়াদ উত্তীর্নের পরেও অবস্থান করেছিলেন অন্তত ১০০ জন- যার মধ্যে ছিলেন অ্যাথলেট, কর্মকর্তা, কোচ ও ডেলিগেশন সদস্য।

আর সর্বশেষ ২০১২ সালে লন্ডন অলিম্পিক থেকে হারিয়েছিলো ২১ জন অ্যাথলেট ও কোচ।

এবারের গোল্ড কোস্ট আয়োজকরা বলছেন, নিখোঁজ অ্যাথলেটদের খুঁজে পেতে সহায়তা করছেন তারা। ভিসার মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ার পর অবস্থান করা নিয়ে ইতোমধ্যেই সতর্ক করেছে অস্ট্রেলিয়া সরকার। তবে ভিসার মেয়াদ থাকা পর্যন্ত সব অ্যাথলেটদের মুক্তভাবে ঘুরে বেড়ানোর অধিকার রয়েছে।

কমেন্টস

কমেন্টস