বল টেম্পারিং’এ পুরনো জুটি স্মিথ-ওয়ার্নার

স্পোর্টস ডেস্কঃ 

স্টিভ স্মিথ ও ডেভিড ওয়ার্নারের বিপদ যেন পিছু ছাড়ছে না। বল টেম্পারিং নিয়ে বের হচ্ছে নতুন নতুন সব তথ্য। এবার জানা যায়, অস্ট্রেলিয়ার ঘরোয়া ক্রিকেট শেফিল্ড শিল্ডেও বল বিকৃতিকাণ্ডে জড়িত ছিলেন তারা।

কেপটাউন টেস্টে বল টেম্পারিং করেন ব্যানক্রফট। সেই দায় স্বীকার করেন অজি অধিনায়ক স্মিথ। দায়টা বর্তায় সহ-অধিনায়ক ওয়ার্নারের কাঁধেও।

কলঙ্কের কালি মেখে নিজ নিজ পদ থেকে সরে যেতে বাধ্য হয়েছেন স্মিথ-ওয়ার্নার। এক বছর নিষিদ্ধও হয়েছেন তারা। আর ব্যানক্রফটের নিষেধাজ্ঞা ৯ মাসের। ইতিমধ্যে দেশে ফিরেছেন তারা।

এর পরপরই এমন তথ্য আবার মাথা চাড়া দিয়ে উঠলো। সেই গোমর ফাঁস করলেন ড্যারিয়েল হার্পার। ২০১৬ সালের নভেম্বরে শেফিল্ড শিল্ডের ম্যাচে মুখোমুখি হয় ভিক্টোরিয়া ও নিউ সাউথওয়েলস। ওই ম্যাচে ম্যাচ রেফারির দায়িত্বে ছিলেন হার্পার। তিনি জানালেন, ওই প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বল টেম্পারিংয়ের মতো অবৈধ কাণ্ড ঘটান স্মিথ-ওয়ার্নার। তাদের সতর্ক করার পরও নিজেদের অবস্থান থেকে সরেননি।

হার্পার পরে তা নিয়ে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার (সিএ) ম্যাচ রেফারি ও আম্পায়ার নির্বাচন ম্যানেজার সিমন টাফেলের কাছে নালিশ করেন। তবে তাতে কর্ণপাত করেনি সিএ।

এর আগে শীতকালে অ্যাশেজ সিরিজেও বল টেম্পারিং করেন স্মিথ-ওয়ার্নাররা বলে অভিযোগ তোলেন একাধিক ক্রিকেট মস্তিষ্ক। সেই দলে ছিলেন ইংলিশ সাবেক অধিনায়ক মাইকেল ভন।

কমেন্টস

কমেন্টস