পরিসংখ্যানে ফ্রান্স-উরুগুয়ের বিগত লড়াই

স্পোর্টস ডেস্কঃ

২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপের প্রথম কোয়ার্টার ফাইনালে মুখোমুখি হচ্ছে ফ্রান্স-উরুগুয়ে। কাল বাংলাদেশ সময় রাত ৮ টায় শেষ আটে ওঠার লড়াইয়ে একে অপরের বিপক্ষে মোকাবেলা করবে দুই দল। খেলাটি অনুষ্ঠিত রাশিয়ার নিজনি নভোগ্রাদ স্টেডিয়ামে। মজার ব্যাপার হচ্ছে, এবারের বিশ্বকাপে কোয়ার্টার ফাইনালের টিকিট পাওয়া দলগুলোর মধ্যে একটি ম্যাচেই মুখোমুখি হচ্ছে দুই সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স ও উরুগুয়ে। আর সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়নের মধ্যে ব্রাজিল প্রতিপক্ষ হিসেবে পাচ্ছে বেলজিয়ামকে, অন্যদিকে সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হিসেবে ইংল্যান্ড কোয়ার্টারে পাচ্ছে সুইডেনকে। 

পরিসংখ্যানে ফ্রান্স-উরুগুয়ের বিগত লড়াইঃ 

১) সপ্তমবারের মতো বিশ্বকাপের কোয়ার্টার-ফাইনালে খেলবে ফ্রান্স। শেষ আটের আগের ছয় ম্যাচে চার জয়ের সঙ্গে আছে দুই হার। অন্যদিকে এর আগে উরুগুয়ে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার-ফাইনাল খেলেছে চারবার। ইংল্যান্ডকে ১৯৫৪ সালে, সোভিয়েত ইউনিয়নকে ১৯৭০ সালে ও ঘানাকে ২০১০ সালে শেষ আটে হারিয়ে করে সেমি-ফাইনালে পৌঁছে তারা। অন্য ম্যাচটিতে ১৯৬৬ সালে পশ্চিম জার্মানির কাছে পরাজিত হয় দুই বারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা।

২) বিশ্বকাপে পেনাল্টি শুট আউটে ফ্রান্সের জয়-পরাজয় সমান দুটি করে। শেষ ২০০৬ সালে ফাইনালে ইতালির কাছে টাইব্রেকারে হারে ফরাসিরা। অন্যদিকে বিশ্বকাপে একবারই পেনাল্টি শুটআউটের অভিজ্ঞতা আছে উরুগুয়ের। ২০১০ সালে জোহানেসবার্গে কোয়ার্টার-ফাইনালে ঘানাকে টাইব্রেকারে হারিয়ে শেষ চারে পৌঁছায় অস্কার তাবারেসের দল।

৩) দুই দলই চলতি আসরের গ্রুপ পর্ব শেষ করেছে গ্রুপ সেরা হয়ে। তিন ম্যাচেই জয় নিয়ে ‘এ’ গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন হয় উরুগুয়ে। আর দুই জয় ও এক ড্রয়ে ‘সি’ গ্রুপের সেরা ফ্রান্স। শেষ ষোলোতে ৪-৩ গোলে আর্জেন্টিনাকে হারায় দিদিয়ে দেশমের দল। আর ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর পর্তুগালের বিপক্ষে ২-১ গোলের জয় পায় উরুগুয়ে।

৪) নিষেধাজ্ঞায় শেষ আটের গুরুত্বপূর্ণ লড়াইয়ে ফ্রান্স পাচ্ছে না মিডফিল্ডার ব্লেইস মাতুইদিকে। এছাড়া দলে আরও চারজন (অলিভিয়ে জিরুদ, বাঁজামাঁ পাভার্দ, পল পগবা ও কোরোঁতাঁ তোলিসো) রয়েছেন যারা আর একটি হলুদ কার্ড পেলেই এক ম্যাচের জন্য নিষিদ্ধ হবেন। অন্যদিকে টুর্নামেন্টে উরুগুয়ের হয়ে একমাত্র হলুদ কার্ডটি দেখেছেন রদ্রিগো বেন্তানকুর।

৫) স্পেন বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিলেও স্প্যানিশ ক্লাব আতলেতিকো মাদ্রিদের চারজন খেলোয়াড়কে দেখা যেতে পারে ফ্রান্স ও উরুগুয়ের মধ্যকার ম্যাচে। ফ্রান্স দলে আছেন অঁতোয়ান গ্রিজমান ও লুকা এরনঁদেজ। আর উরুগুয়ের রক্ষণে আছেন হোসে মারিয়া হিমেনেস ও দিয়েগো গদিন।

৬) ১৯৩০ ও ১৯৫০ সালে দুইবার বিশ্বকাপ জিতেছে উরুগুয়ে। অন্যদিকে ১৯৯৮ সালে নিজেদের একমাত্র বিশ্বকাপ ঘরে তোলে ফ্রান্স। দুই দলের লড়াই হবে চলতি বিশ্বকাপের একমাত্র কোয়ার্টার-ফাইনাল যেখানে দুই সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়ন পরস্পরের মুখোমুখি হবে।

৭) টানা সাত জয়ের আত্মবিশ্বাস নিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে খেলতে নামবে উরুগুয়ে। শেষ সাত ম্যাচে নিজেরা ১৩টি গোল করার বিপরীতে হজম করেছে মোটে একটি। চলতি আসরে গ্রুপ পর্বে একমাত্র দল হিসেবে কোনো গোল হজম করেনি তারা। গত বছরের নভেম্বরে অস্ট্রিয়ার বিপক্ষে শেষ হেরেছিল উরুগুয়ে।

৮) কোয়ার্টারের ম্যাচে ফ্রান্সের হার মাত্র একটি। মার্চে ঘরের মাঠে আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে হারটি এসেছিল কলম্বিয়ার বিপক্ষে। নিজেদের শেষ দশ ম্যাচে আট জয়ের সঙ্গে আছে দুটি ড্র।

৯) রাশিয়ার নিজনি নভোগ্রাদ স্টেডিয়ামে চলতি আসরের শেষ ম্যাচ হবে এটি। দুই দলই এখানে খেলবে প্রথমবারের মতো। এই মাঠে আগের পাঁচ ম্যাচে গোল হয়েছে ১৭টি। এখানে ক্রোয়েশিয়া ও ডেনমার্কের শেষ ষোলোর ম্যাচটির নিষ্পত্তি হয়েছে পেনাল্টি শুট আউটে।

১০) উল্লেখ্য, এর আগে বিশ্বকাপে উরুগুয়ে ও ফ্রান্সের দেখা হয়েছে তিনবার। ১৯৬৬ সালে গ্রুপ পর্বের এক ম্যাচে প্রথম দেখায় ২-১ গোলের জয় লাতিন পরাশক্তিদের। পরের দুই ম্যাচ হয়েছে গোলশূন্য ড্র। পাঁচ বছর আগে মন্তেভিদেওতে দুই দলের শেষ দেখা হয়েছিল এক আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে। ওই ম্যাচে ১-০ গোলে জিতে স্বাগতিক উরুগুয়ে।

১১) ফ্রান্সের ফরোয়ার্ড কিলিয়ান এমবাপে চলতি বিশ্বকাপে প্রতিপক্ষের জালে পাঁচটি শট নিয়েছেন। সবগুলোই লক্ষ্যে ছিল এবং তার মধ্যে তিনটি গোল হয়েছে। বিশ্বকাপ ও ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপ মিলিয়ে ফরাসি ফরোয়ার্ড অঁতোয়ান গ্রিজমান শেষ পাঁচ নক আউট ম্যাচে করেছেন ছয় গোল। অন্যদিকে, চলতি আসরে উরুগুয়ের শেষ তিনটি গোলই করেছেন এদিনসন কাভানি।

কমেন্টস

কমেন্টস