৪ ম্যাচে ১৩ মিনিট ৫০ সেকেন্ড শুয়েই ছিলেন নেইমার

স্পোর্টস ডেস্কঃ

রাশিয়া বিশ্বকাপের ব্রাজিলের প্রথম ম্যাচ থেকেই ইচ্ছে করেই একটু পর পর মাঠে পড়ে যাওয়ার অভিযোগ আনা হয়েছিল ব্রাজিলিয়ান তারকা ফরোয়ার্ড নেইমারের বিরুদ্ধে। সর্বশেষ নক আউট পর্বের মেক্সিকো ম্যাচের পর এই বিষয়ে নিজেই মুখ খুলেন নেইমার। ব্রাজিল তারকা বলছেন, ‘আমার ব্যথা শুধু আমিই বুঝি। এটা এমন একটা বিষয় যা আমি কন্ট্রোল করতে পারিনা। অবৈধভাবে আমাকে ফেলে দেয়া হচ্ছে। সমালোচনা আমি মাথায় নেই না মন্তব্য করে টিভি গ্লোবোর সঙ্গে আলাপকালে নেইমার বলেন, ‘এসব আলোচনা আপনার আচরণে প্রভাব ফেলতে পারে। কতটা যন্ত্রণা হয় তা শুধু আমিই জানি।’

প্রতিপক্ষে ফাউলের শিকার হয়ে এখন পর্যন্ত কতোবার নেইমার মাঠে পড়ে ছিলেন সেই হিসাবও ইতিমধ্যেই বের করা হয়েছে। ব্রাজিলের খেলা এ পর্যন্ত রাশিয়া বিশ্বকাপের ৪ ম্যাচে নেইমার মাঠে পড়ে ছিলেন ১৩ মিনিট ৫০ সেকেন্ড। অর্থাৎ একটি ম্যাচের ছয় ভাগের এক ভাগ। এর মধ্যে শুধু মেক্সিকোর বিপক্ষেই সাড়ে পাঁচ মিনিট মাঠে পড়ে ছিলেন।

নেইমার কিন্তু পুরো ফিট হয়ে রাশিয়ায় আসতে পারেননি। গত ফেব্রুয়ারিতে পায়ের পাতায় চোট পেয়েছিলেন। তার ওপর বিশ্বকাপে প্রথম ম্যাচেই সুইসরা তাঁকে যেভাবে ট্যাকল করেছে, সেটি নেইমারের ভীতিকে আরও বাড়িয়ে দিয়েছে। সেই ম্যাচে তাঁকে দশবার ফাউল করা হয়, যা কিনা ১৯৯৮ বিশ্বকাপের পর থেকে এই টুর্নামেন্টের এক ম্যাচে সর্বোচ্চ।

বিশ্বকাপে অনেক দূর যেতে হলে সুস্থ থেকে নিজের ফর্ম ধরে রাখাটা প্রাথমিক শর্ত। চোট থেকে ফিরে বিশ্বকাপে এসে নিজের সেরাটা দেওয়া চ্যালেঞ্জই ছিল নেইমারের জন্য। ধারণা করা হচ্ছে, ডিফেন্ডারের ট্যাকল থেকে নিজেকে রক্ষার জন্যই এমন ‘ডাইভ’ দিচ্ছেন নেইমার।

উল্লেখ্য, ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচের পর থেকেই নেইমারকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম বেশ সরব। কখনো কখনো প্রতিপক্ষ দলের কোচও দাবি করছেন, নেইমার আসলেই বেশি বেশি অভিনয় করছেন। তবে এতোদিনে সেই বিষয়ে নেইমার নিজে কিছু না বলে চুপ থাকলেও এবার প্রকাশ্যে মুখ খুললেন এই ব্রাজিলিয়ান তারকা।

কমেন্টস

কমেন্টস