ওড়না দিয়ে মুখ বেঁধে নারীকে কলাবাগানে নিয়ে…

ডেইলি মিরর ২৪ ডেস্কঃ 

আশুলিয়ার পলাশবাড়ি এলাকায় এক নারীকে গণধর্ষনের অভিযোগে তিন জনকে আটক করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় ৫ জনকে আসামী করে আশুলিয়া থানায় মামলা দায়ের করেছে ভুক্তভোগীর পরিবার।

বুধবার (৩১ অক্টোবর) দুপুরে আটককৃতদের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে গ্রেফতার দেখিয়ে ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন করে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

অভিযুক্তরা হলো কুড়িগ্রাম জেলার নাগেশ্বরী থানার আব্দুল হামিদের ছেলে রেজাউল করীম (১৮), রংপুর জেলার মিঠাপুকুর থানার দুুুদু মিয়ার ছেলে মুছা মিয়া (১৮), মানিকগঞ্জ জেলার বালিরটেকের ফরহাদ মিয়ার ছেলে মেহেদী হাসান (১৯), কুড়িগ্রাম জেলার নাগেশ্বরী থানার ইনসার আলীর ছেলে নূরে আলম (১৯) এবং নড়াইল জেলার নড়াগাতি থানার লিটন শেখের ছেলে সুজন (২০)।

এদের মধ্যে রেজাউল করিম, মুছা মিয়া ও মেহেদী হাসানকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে। তবে নূর আলম ও সুজন পালাতক রয়েছে।

পুলিশ জানায়, নির্যাতনের শিকার ওই নারী কয়েকদিন আগে কুড়িগ্রাম থেকে আশুলিয়ার পলাশবাড়ি এলাকায় তার খালাতো বোনের বাড়ি বেড়াতে আসে। গতকাল রাত ৯ টার দিকে পার্শ্ববর্তী এক আত্মীয়ের বাসা থেকে রাতের খাবার খেয়ে বোনের বাসায় ফেরার পথে পলাশবাড়ির বটতলা লেবু বাগান এলাকায় পৌছালে অভিযুক্তরা তার পথ রোধ করে এবং তার ওড়না দিয়ে মুখ বেঁধে জোরপূর্বক পার্শবর্তী কলাবাগানে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে ফেলে যায়। পরে তার ডাক-চিৎকারে স্থানীয়রা এসে তাকে উদ্ধার করে।

এ ঘটনায় তার পরিবারের অভিযোগের প্রেক্ষিতে তিন জনকে আটক করে আদালতে পাঠানো হয়েছে এবং বাকীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলেও জানায় আশুলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রিজাউল হক দীপু।

কমেন্টস

কমেন্টস