তুলে নেবার পর যা যা হয়েছে ইমরান এইচ সরকারের সাথে

ডেইলি মিরর ২৪ ডেস্কঃ

কালো কাপড়ে চোখমুখ বেঁধে হাতে হাতকড়া পরিয়ে তুলে এক রকম সিমেমার স্টাইলে নেওয়া হয়েছিল গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকাকে। গতকাল বুধবার শাহবাগ থেকে তুলে নেওয়ার পর প্রায় সাড়ে ছয় ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়ে তাঁকে।  

আজ বৃহস্পতিবার (৭ জুন) দুপুরে রাজধানীর রিপোটার্স ইউনিটির সাগর–রুনি মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবি করেন।

জিজ্ঞাসাবাদের বর্ণনা দিয়ে ইমরান দাবি করেন, কালো কাপড় দিয়ে চোখ–মুখ বেঁধে হাতে হাতকড়া পরিয়ে র‍্যাব-৩ এর কার্যালয়ে নেওয়া হয়। এরপর র‍্যাবের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এলে কালো কাপড় ও হাতকড়া খুলে দেওয়া হয় তার।

সেখানে র‍্যাবের কর্মকর্তারা  জানান তারা ইমরান সঙ্গে আলোচনা করতে চান। তাঁরা জানতে চান, কিসের জন্য আন্দোলন করছেন? এর উদ্দেশ্য কী? একপর্যায়ে  কর্মকর্তারা তাঁদের বক্তব্যে মাদকবিরোধী অভিযানের যৌক্তিকতা ব্যাখ্যা করেন। মাদকের বিরুদ্ধে যে অভিযান চলছে, তার যৌক্তিকতা তুলে ধরতে চান।

এ সময় ইমরান জানান, তিনি র‍্যাবের কর্মকর্তাদের বলেছেন, মাদকের বিরুদ্ধে যেমন তাঁরা সোচ্চার, তেমনই মাদকবিরোধী অভিযানের নামে যে বিচারবর্হিভূত হত্যাকাণ্ড ঘটছে, তার বিরুদ্ধেও তাঁরা সোচ্চার। এ কথাটি তিনি তাঁদের বোঝানোর চেষ্টা করেন।

সংবাদ সম্মেলনে গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র বলেন, যে প্রক্রিয়ায় তাঁকে তুলে নেওয়া হয়েছে, সেটি কোনোভাবেই কাম্য নয়। শুধু প্রতিবাদ করার জন্য একটি প্রতিবাদ সভা থেকে কোনো ওয়ারেন্ট ছাড়া সিনেম্যাটিক স্টাইলে তুলে নেওয়ার বিষয়টি প্রত্যাশিত নয়।’

এদিকে ইমরানকে আটক ও নেতা–কর্মীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরের সামনে আজ বিকেল চারটায় প্রতিবাদ সমাবেশের আয়েজান করেছে গণজাগরণ মঞ্চ।

প্রসঙ্গত, গতকাল বোধবার  বিকেল ৪ টার দিকে রাজধানীর শাহবাগ থেকে তুলে নেওয়া হয়েছিল গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকাকে।

কমেন্টস

কমেন্টস