ঝড়ে আম কুড়াতে গিয়ে আর ফিরে আসেনি মেয়েটি!

ডেইলি মিরর ২৪ ডেস্কঃ

পিরোজপুরের কাউখালী উপজেলার দাশেরকাঠি গ্রামের খাল থেকে মুক্তা আক্তার (১৩) নামে এক স্কুলছাত্রীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল সোমবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। তাকে হত্যার অভিযোগে এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে

মুক্তা আক্তার উপজেলার দাশেরকাঠি গ্রামের হিরু মহাজনের মেয়ে। সে স্থানীয় দাশেরকাঠি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ত। গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তির নাম সোহেল মহাজন (৩৩)। তাঁর বাড়ি একই এলাকায়।

স্থানীয় লোকজন ও পুলিশের ভাষ্য, গতকাল দুপুরে ঝড় হয়। দুপুর ১২টার দিকে মুক্তা বাড়ির পাশের বাগানে আম কুড়াতে যায়। এরপর থেকে সে নিখোঁজ ছিল। রাত ১০টার দিকে বাড়ির পাশের দাশেরকাঠি খালে একটি লাশ ভাসতে দেখে লোকজন। খবর পেয়ে লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ। লাশটি মুক্তা আক্তারের বলে শনাক্ত করা হয়। লাশ উদ্ধারের ঘটনায় গতকাল রাতেই মুক্তার মা শানু বেগম বাদী হয়ে স্থানীয় থানায় হত্যা মামলা করেন। মামলায় দুজনকে আসামি করা হয়।

মুক্তার বাবা হিরু মহাজনের ভাষ্য, প্রতিবেশী পারভেজ মহাজন তাঁর মেয়েকে প্রায়ই উত্ত্যক্ত করতেন। পারভেজ ও তাঁর ভাই সোহেল মুক্তাকে হত্যা করে খালে লাশ ফেলে দিয়েছেন বলে তাঁর সন্দেহ।

কাউখালী থানার ওসি কামরুজ্জামান তালুকদার বলেন, ময়নাতদন্তের জন্য আজ মঙ্গলবার সকালে মুক্তার লাশ পিরোজপুর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পাওয়ার পর তার মৃত্যুর কারণ জানা যাবে। মুক্তার মায়ের লিখিত অভিযোগ হত্যা মামলা হিসেবে নেওয়া হয়েছে। মামলার এজাহারভুক্ত এক আসামি সোহেলকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অপর আসামি পারভেজ পলাতক রয়েছেন।

কমেন্টস

কমেন্টস