’ রাজীবের শেষ কথা ‘রাজীব কে? রাজীব মারা গেছে!’

ডেইলি মিরর ২৪ ডেস্কঃ 

‘রাজীব কে? রাজীব মারা গেছে!’ হাসপাতালের বিছানায় চেতনা থাকা সময় শেষ এই কথা বলেছিলেন রাজীব। তবে কেন এই কথা বলেছিলেন রাজীব তা আর জানা হলো না । লড়াই করে বড় হয়েছিলেন তিনি । এই শহর তাঁর লড়াইকে সম্মান দিয়ে দাঁড়ানোর মতো একচুল জায়গাও দিল না। এখন শেষ আশ্রয়ের জন্য তিনি চলে যাচ্ছেন গ্রামের বাড়িতে। আর কখনো স্বপ্ন দেখার জন্য তাঁকে ফিরতে হবে না এই শহরে।

দুই বাসের চাপায় হাত হারানো রাজীব হোসেনের মরদেহ ময়নাতদন্ত শেষ হওয়ার পর হাইকোর্ট মাজার প্রাঙ্গনে প্রথম জানাজা নামাজ শেষ হবার পর পটুয়াখালীর বাউফলের দাসপাড়ায় নেওয়া হবে। সেখানেই রাজীবকে দাফন করা হবে।

গতকাল সোমবার দিবাগত রাত ১২টা ৪০ মিনিটের দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রাজীব হোসেন মারা যান। রাজীবের পরিবারের দুজন স্বজন এ খবর নিশ্চিত করেন।

৩ এপ্রিল বিআরটিসির একটি দোতলা বাসের পেছনের ফটকে দাঁড়িয়ে গন্তব্যে যাচ্ছিলেন রাজধানীর মহাখালীর সরকারি তিতুমীর কলেজের স্নাতকের (বাণিজ্য) দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র রাজীব হোসেন (২১)। হাতটি বেরিয়ে ছিল সামান্য বাইরে। হঠাৎ করেই পেছন থেকে একটি বাস বিআরটিসির বাসটিকে পেরিয়ে যাওয়ার বা ওভারটেক করার জন্য বাঁ দিকে গা ঘেঁষে পড়ে। দুই বাসের প্রবল চাপে রাজীবের হাত শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। শমরিতা হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসার পর রাজীবকে ঢাকা মেডিকেল কলেজে স্থানান্তর করা হয়। সাময়িক উন্নতির পর ১৬ এপ্রিল থেকে তাঁর মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ শুরু হয়। রাজীবের মস্তিষ্ক অসাড় হয়ে যায়। সেই থেকে আর জ্ঞান ফেরেনি তাঁর।

রাজীবের সব স্বপ্ন গতকাল রাতে শেষ হয়ে যায়। প্রায় সাত দিন অচেতন অবস্থায় পড়ে থেকে একেবারে চলে গেলেন রাজীব।

কমেন্টস

কমেন্টস