কুষ্টিয়ায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ২

ডেইলি মিরর ২৪ ডেস্কঃ 

কুষ্টিয়ায় পৃথক ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুইজন নিহত হয়েছেন। সদর উপজেলার কবুরহাট এবং দৌলতপুর উপজেলার মুসলিমনগরে মঙ্গলবার রাতে এসব ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- আজম (৩৫) ও মদন ( ৪৫)। আজম জেলার দৌলতপুর উপজেলার জামালপুর গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে। মদন একই উপজেলার গ্রামের রিফাজ উদ্দিনে ছেলে। এরা দুজনই মাদক ব্যবসায়ী বলে পুলিশ জানায়। ঘটনাস্থল থেকে ২টি বিদেশি পিস্তল, ২টি ম্যাগজিন, ৬ রাউন্ড গুলি ও ১৭০০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করেছে পুলিশ।

কুষ্টিয়া মডেল থানার ওসি নাসির উদ্দিন জানান, সদর উপজেলার কুবরহাট মাদ্রাসাপাড়া এলাকায় মাদক বেচা-কেনা চলছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে রাত সোয়া ২টার দিকে মডেল থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। এ সময় মাদক ব্যবসায়ীরা পুলিশের উপর গুলি বর্ষণ করে। এ সময় পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। গোলাগুলির এক পর্যায়ে ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ এক যুবককে উদ্ধার করে কুষ্টিয়া ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে। এ ঘটনায় চারজন পুলিশ সদস্য আহত হয়। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ একটি বিদেশি পিস্তল, ২টি পিস্তলের ম্যাগজিন, ৩ রাউন্ড গুলি ও ৮০০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করেছে।

এদিকে কুষ্টিয়ার দৌলতপুর থানার এসআই সাইফুল জানান, রাত সোয়া ৩টার দিকে দৌলতপুর উপজেলার মুসলিম নগর বাঁধের বাজার এলাকায় মাদক ব্যবসায়ী মাদক কেনা-বেচা করছিল। এ সময় পুলিশের একটি দল সেখানে পৌঁছালে মাদক ব্যবসায়ীরা পুলিশকে লক্ষ করে গুলি ছোড়ে। এ সময় পুলিশও পাল্টা গুলি ছুড়ে। পরে ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ মদন (৪০) নামের ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। মদন শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী ছিল বলে পুলিশ জানায়। এ ছাড়া তার বিরুদ্ধে দেড় ডজনেরও বেশি মামলা রয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, ৩ রাউন্ড গুলি, ৩০ বোতল ফেনসিডিল ও ৯০০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে।

কমেন্টস

কমেন্টস